সিলেটSaturday , 27 August 2022
  1. আইন-আদালত
  2. আন্তর্জাতিক
  3. উপ সম্পাদকীয়
  4. খেলা
  5. ছবি কথা বলে
  6. জাতীয়
  7. ধর্ম
  8. প্রবাস
  9. বিচিত্র সংবাদ
  10. বিনোদন
  11. বিয়ানী বাজার সংবাদ
  12. ব্রেকিং নিউজ
  13. মতামত
  14. মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু
  15. রাজনীতি
সবখবর

শেরপুরে স্কুলেই মিলল ছাত্রের মরদেহ

Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টার:
শেরপুরে একটি বেসরকারি স্কুলের টয়লেট থেকে রিমন হাসান (১৪) নামে এক ছাত্রের নগ্ন লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ২৬ আগস্ট শুক্রবার দুপুরে সদর উপজেলার ভাতশালা ইউনিয়নের ভীমগঞ্জ এলাকার ড্যাফোডিল প্রিপারেটরি এন্ড হাই স্কুলের একটি টয়লেট রিমনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহত রিমন পার্শ্ববর্তী খুনুয়া মধ্যপাড়া গ্রামের মো. সাগর মিয়ার ছেলে এবং ওই স্কুলেরই অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার ভাতশালা ইউনিয়নের খুনুয়া মধ্যপাড় এলাকার ভ্যানচালক সাগর মিয়া ও মা রশিদা বেগমের চার ছেলের মধ্যে রিমন দ্বিতীয়। গতকাল বৃহস্পতিবার দিনে রিমন ড্যাফোডিল প্রিপারেটরি এ্যান্ড হাইস্কুলের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। বিকেলে মাঠে বন্ধুদের সাথে ক্রিকেট খেলে বাড়ি গিয়ে খাওয়া-দাওয়া করে আবার বাইরে বের হয় রিমন। সে মাঝে-মধ্যেই না বলে নানা বাড়ি গিয়ে থাকতো। তাই রাত পেরিয়ে গেলেও তার বাবা-মা কোন খোঁজ নেননি।

এদিকে সকালে ড্যাফোডিল প্রিপারেটরি এন্ড হাই স্কুলের নাইট গার্ড মো. শেখ ফরিদ স্কুলের টয়লেটে হাত-মুখ ধুতে গিয়ে নগ্ন ও কাদামাটি মাখা অবস্থায় এক কিশোরের লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্কুলের পরিচালক মো. চান মিয়াকে খবর দেন। পরে তিনি পুলিশে খবর দিলে সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুপুরে রিমনের লাশের সুরতহাল তৈরি শেষে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। লাশ উদ্ধারের সংবাদ পেয়ে শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. হান্নান মিয়া, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই), জামালপুর ও অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি), ময়নসিংহের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

রিমনের বাবা-মা জানান, কিছুদিন ধরে পার্শ্ববর্তী একটি মেয়ের সাথে সম্পর্ক ছিল রিমনের। সে ওই মেয়ের সাথে ফোনে কথা বলতো।

সিআইডি ক্রাইমসিন ইউনিট ময়মনসিংহের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ইউসুফ জানান, রিমনের শরীরের আঘাতের চিহ্ন থাকায় ধারণা করা হচ্ছে, তাকে কোন আক্রোশবশতঃ হত্যা করা হয়েছে। তার গলাতেও দাগ রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, তার শ্বাসরোধও করা হয়ে থাকতে পারে। বাকিটুকু ময়নাতদন্তে বুঝা যাবে। এ ঘটনায় প্রকৃত অপরাধীকে শনাক্ত করতে কাজ চলছে।

এ ব্যাপারে শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ হান্নান মিয়া জানান, এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ ক্লুলেস এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘটান ও জড়িতদের শনাক্ত করে চেষ্টা করছে। আশা করছি দ্রুতই আমরা অপরাধীদের শনাক্ত করে শনাক্ত করতে সক্ষম হবো।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে : 995 বার