সিলেটMonday , 10 October 2022
  1. আইন-আদালত
  2. আন্তর্জাতিক
  3. উপ সম্পাদকীয়
  4. খেলা
  5. ছবি কথা বলে
  6. জাতীয়
  7. ধর্ম
  8. প্রবাস
  9. বিচিত্র সংবাদ
  10. বিনোদন
  11. বিয়ানী বাজার সংবাদ
  12. ব্রেকিং নিউজ
  13. মতামত
  14. মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু
  15. রাজনীতি

সাকিব-তামিমদের সতীর্থ সাজেদুলের নতুন ইনিংস শুরু

Link Copied!

ক্রীড়া প্রতিবেদক:
বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান এবং দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালের সঙ্গে ক্রিকেট ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন পেসার সাজেদুল ইসলাম। তবে ক্যারিয়ারটা লম্বা করতে পারেননি রংপুরের এ পেসার।

ইনজুরি কবলিত হয়ে গতবছর ৩৩ বছর বয়সেই ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছিলেন সাজেদুল। খেলা ছাড়লেও ক্রিকেট মাঠ ছাড়েননি বাংলাদেশ দলের সাবেক বাঁহাতি এ পেসার। এবার ঘরোয়া ক্রিকেটে আম্পায়ার হিসেবে অভিষেক হতে চলেছে সাজেদুল ইসলামের।

এবারের ২৪তম জাতীয় ক্রিকেট লিগ দিয়ে আম্পায়ারিংয়ে নাম লেখাবেন সাজেদুল। সোমবার রাজশাহী বিভাগ এবং বরিশাল বিভাগের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে নতুন যাত্রা শুরুর অপেক্ষার প্রহর গুনছেন টাইগারদের সাবেক এই পেসার। ঢাকা পোস্টকে নিজের আম্পায়ারিং অভিষেকের অনুভূতি প্রকাশ করে সাজেদুল জানালেন অন্যরকম উত্তেজনা বিরাজ করছে তার।

সাজেদুল বলেন, ‘প্রথম ম্যাচ ডেব্যু বলে কথা, অনুভূতি তো অন্যরকমই। খেলোয়াড় হিসেবে যখন ডেব্যু হয় তখন ফিলিংস এক রকম ছিলো। আজকে যখন আম্পায়ার হিসেবে ডেব্যু হতে চলেছে তখন ফিলিংস আবার অন্যরকম। এটা খেলারই অংশ। সেসব চিন্তা করে আম্পায়ার হিসেবে প্রথমবার আলাদা এক এক্টাইটিং কাজ করছে।’

সাজেদুল আরো যোগ করেন, ‘অবশ্যই যখন কেউ ক্রিকেট শুরু করে তার প্রথম লক্ষই থাকে কিন্তু জাতীয় দল। এখন আমি ঘরোয়া দিয়ে শুরু করতে যাচ্ছি ভবিষ্যতে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে যাওয়ার লক্ষ্য নিয়ে এখন থেকেই কাজ চালিয়ে যেতে চাই।’

যে বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে সাজেদুলের ক্রিকেটে পথচলা শুরু হয়েছিল, এবার সেই বন্ধুদের সাথে মাঠে থাকছেন ভিন্ন ভূমিকায়। জানালেন কাজের ক্ষেত্রে দায়িত্ববোধ আগে।

সাজেদুল বলছিলেন, ‘এটা আসলে ডিফারেন্ট জিনিস, আমি পেস বোলার ছিলাম সেক্ষেত্রে আমার ইনজুরি সমস্যা ছিল যে কারণে ক্যারিয়ারটা দীর্ঘ হয়নি। সাকিব তামিম হয়তো বন্ধু কিন্তু মাঠে যখন নামবো তখন আমি আম্পায়ারের ভূমিকায় থাকবো। কাজের ক্ষেত্রে দায়িত্ববোধই আগে।’

সাজেদুল বাংলাদেশের হয়ে ৩ টেস্ট ও ১ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। ২০০৮ সালে নিউজিল্যান্ড সফরে টেস্ট অভিষেক হয় তার। সবশেষ ২০১৩ সালে খেলেন ক্যারিয়ারের শেষ টেস্ট। তিন ম্যাচে শিকার করেছেন মাত্র ৩ উইকেট।

সে বছরই (২০১৩ সালেই) খেলেন একমাত্র টি-টোয়েন্টি ম্যাচ তবে পাননি কোনো উইকেটের দেখা। এছাড়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৯৯ ম্যাচ খেলে ২৪১ উইকেট সংগ্রহ করেছেন সাজেদুল। লিস্ট এ’তে ৫৫ ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ৬৭ উইকেট।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে : 989 বার