সিলেটMonday , 14 November 2022
  1. আইন-আদালত
  2. আন্তর্জাতিক
  3. উপ সম্পাদকীয়
  4. খেলা
  5. ছবি কথা বলে
  6. জাতীয়
  7. ধর্ম
  8. প্রবাস
  9. বিচিত্র সংবাদ
  10. বিনোদন
  11. বিয়ানী বাজার সংবাদ
  12. ব্রেকিং নিউজ
  13. মতামত
  14. মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু
  15. রাজনীতি

বগুড়ায় হাসপাতাল থেকে চুরি যাওয়া নবজাতক গাজীপুরে উদ্ধার

Link Copied!

বগুড়া প্রতিনিধি:
বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (শজিমেক) থেকে চুরি যাওয়া নবজাতককে উদ্ধার করেছে পুলিশ। চার দিন পর রোববার (১৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় গাজীপুরের চন্দ্রা এলাকা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। তবে এ ঘটনায় কাউকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বগুড়া সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরে আলম। তিনি জানান, রোববার দুপুরের দিকে গাজীপুরের চন্দ্রা বাজার এলাকায় রাস্তার পাশে একটি নবজাতকের সন্ধান পায় স্থানীয়রা। পরে সেখানকার পুলিশ বগুড়া সদর থানায় জানায়। খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ নবজাতকের বাবা সৈকত হাসান এবং মা ইতি বেগমকে নিয়ে সেখানে রওনা হন। তারা গিয়ে তাদের নবজাতককে শনাক্ত করেন।

এর আগে গত ৯ নভেম্বর দুপুরে শজিমেক হাসপাতালের গাইনি বিভাগ থেকে চার দিনের নবজাতক চুরির ঘটনা ঘটে। চুরি হয়ে যাওয়া ওই নবজাতকের মা ২৩ বছর বয়সী ইতি বেগম। তিনি সদর উপজেলার এরুলিয়া বানদিঘী এলাকার সৈকত হাসানের স্ত্রী।

নবজাতকের বাবা সৈকত হাসান বলেন, গত ৫ নভেম্বর সন্ধ্যার দিকে আমার স্ত্রী ইতি বেগম প্রসবব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। পরের দিন একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দেন তিনি। তিন দিন পর বুধবার দুপুরে তাদের রিলিজ দেওয়া হয়। রিলিজ দেওয়ার পর তারা নবজাতককে নিয়ে হাসপাতাল থেকে বের হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এ সময় অজ্ঞাত পরিচয়ের এক নারী সরকারিভাবে তাদের পাঁচ হাজার টাকা সহায়তার আশ্বাস দেন। সেই আশ্বাসে তার শ্যালিকা নবজাতককে নিয়ে হাসপাতালের নিচে যান। সহায়তা পেতে কিছু কাগজ ফটোকপি করতে হবে- এই কথা বলে তাকে দোকানে পাঠান ওই নারী। তিনি দোকানে গেলে নবজাতককে নিয়ে চলে যান তিনি।

বগুড়া জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরাফত ইসলাম জানান, বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে চুরি যাওয়া নবজাতককে উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় এখনো কাউকে আটক বা গ্রেপ্তার করা যায়নি। আমরা তদন্ত অব্যাহত রেখেছি। জড়িতদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে।