সিলেটTuesday , 15 November 2022
  1. আইন-আদালত
  2. আন্তর্জাতিক
  3. উপ সম্পাদকীয়
  4. খেলা
  5. ছবি কথা বলে
  6. জাতীয়
  7. ধর্ম
  8. প্রবাস
  9. বিচিত্র সংবাদ
  10. বিনোদন
  11. বিয়ানী বাজার সংবাদ
  12. ব্রেকিং নিউজ
  13. মতামত
  14. মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু
  15. রাজনীতি

জি-২০ সম্মেলনে করোনার হানা, দেশে ফিরলেন কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী

Link Copied!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
আসিয়ান শীর্ষ সম্মেলনের নৈশভোজে একসঙ্গে সাংস্কৃতিক নৃত্য পরিবেশন দেখছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেন। ছবিটি গত ১২ নভেম্বর তোলা

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ ইন্দোনেশিয়ায় শুরু হয়েছে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ আন্তর্জাতিক গোষ্ঠী গ্রুপ অব টোয়েন্টির বা জি-২০ শীর্ষ সম্মেলন। মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) দেশটির পর্যটন শহর বালিতে এই সম্মেলন শুরু হয়।

আর এদিনই জি-২০ সম্মেলনে হানা দিয়েছে করোনাভাইরাস। মূলত কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেন করোনায় আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন এবং এর পরপরই বালি ছেড়েছেন তিনি। মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এপি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেন মঙ্গলবার বলেছেন, তিনি কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং এ কারণে বালিতে চলমান জি-২০ সম্মেলন ত্যাগ করছেন তিনি। মূলত জি-২০ সম্মেলনের আগে কম্বোডিয়ার রাজধানীতে আঞ্চলিক একটি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনসহ অন্য বিশ্ব নেতারা অংশ নিয়েছিলেন।

এপি বলছে, মঙ্গলবার থেকে ইন্দোনেশিয়ার বালিতে শুরু হয়েছে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ আন্তর্জাতিক গোষ্ঠী গ্রুপ অব টোয়েন্টির বা জি-২০ শীর্ষ সম্মেলন। দুই দিনব্যাপী এই সম্মেলন শুরুর সময় কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেনের করোনা শনাক্ত হয়।

পরে নিজের ফেসবুক পেজে দেওয়া এক পোস্টে কম্বোডিয়ান প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি সোমবার রাতে করোনাভাইরাস পরীক্ষায় পজিটিভ হয়েছেন এবং ইন্দোনেশিয়ার একজন চিকিৎসক তার করোনায় আক্রান্তের বিষয়টি মঙ্গলবার সকালে নিশ্চিত করেছেন। আর তাই তিনি দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং জি-২০ সম্মেলনের পাশাপাশি ব্যাংককে অর্থনৈতিক ফোরামের এপিএসি বা অ্যাপেকের আসন্ন বৈঠকও বাতিল করেছেন।

হোয়াইট হাউস বলছে, প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মঙ্গলবার সকালে করোনা পরীক্ষা করেছেন এবং এতে তিনি নেগেটিভ হয়েছেন।

এপি বলছে, বাইডেন ও কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেন গত শনিবার একসঙ্গে যথেষ্ট সময় কাটিয়েছেন এবং রোববার তারা একটি যৌথ সম্মেলনে থাকলেও সেখানে একসঙ্গে বসেননি।

হুন সেন বলেছেন, এটি সৌভাগ্যের বিষয় যে, তিনি সোমবার রাতে বেশ দেরিতে বালিতে পৌঁছান এবং এতে করে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁসহ অন্যান্য নেতাদের সাথে নৈশভোজে যোগ দিতে পারেননি তিনি।

গত রোববার শেষ হওয়া অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথইস্ট এশিয়ান নেশনের বা আসিয়ানের শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজক ছিল কম্বোডিয়ার রাজধানী নম পেন। ওই সম্মেলন চলাকালীন হুন সেন অনেক নেতার সাথে সাক্ষাতের পাশাপাশি করমর্দন করেছিলেন। তাদের অনেকে পরপর বেশ কয়েকটি আবার কেউ একাধিক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এপি বলছে, কম্বোডিয়ার ওই সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ছাড়াও অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ, চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং-সহ আরও অনেক নেতা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, কম্বোডিয়া গত মাসে ভ্রমণকারীদের ওপর থেকে বেশিরভাগ করোনা সংক্রান্ত বিধিনিষেধ ও নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার ঘোষণা দেয়। আসিয়ান শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নেওয়া বিশ্ব নেতাদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা প্রোটোকল মেনে চলার জন্য সুপারিশ করা হয়েছিল কিন্তু তা করার প্রয়োজন ছিল না।

আর তাই শীর্ষ সম্মেলনের সময় বড় বড় এসব নেতাসহ অন্যান্য অংশগ্রহণকারীদের প্রায় কেউই মাস্ক পরিধান করেননি এবং সকলেই দীর্ঘ সময়ের জন্য একে অপরের কাছাকাছি বসে ছিলেন।