সিলেটSunday , 1 January 2023
  1. আইন-আদালত
  2. আন্তর্জাতিক
  3. উপ সম্পাদকীয়
  4. খেলা
  5. ছবি কথা বলে
  6. জাতীয়
  7. ধর্ম
  8. প্রবাস
  9. বিচিত্র সংবাদ
  10. বিনোদন
  11. বিয়ানী বাজার সংবাদ
  12. ব্রেকিং নিউজ
  13. মতামত
  14. মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু
  15. রাজনীতি

সেতু ভেঙে পড়ায় কমলগঞ্জের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

Link Copied!

স্টাফ রিপোর্টার:
মৌলভীবাজার কমলগঞ্জ উপজেলার সঙ্গে জেলা সদরে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম ধলাই নদীর ওপর চৈত্রঘাট সেতুটি ফের বিধ্বস্ত হলো। নির্দেশনা অমান্য করে একটি ট্রাক সেতুর ওপর ওঠা মাত্রই ভেঙে গেল সেতুটি।

এতে পুনরায় বন্ধ হয়ে গেছে যান চলাচল।
১২ দিন ধরে মেরামতের পর চালু না হতেই শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) ভোরে কয়লা বোঝাই ট্রাক পারাপারের সময় বিধ্বস্ত হয় সেতুটি।

জেলা সদরের সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম সেতুটি ফের বন্ধ হওয়ায় চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন যাত্রী ও যানবাহন চালকরা।

জানা যায়, গত ১৭ ডিসেম্বর বিকেলে চৈত্রঘাট এলাকায় ধলাই সেতু ভেঙে যায়। এরপর সড়ক ও জনপথ বিভাগ মেরামত কাজ সম্পন্ন করে ২৯ ডিসেম্বর বিকেলে ভারী যানবাহন ব্যতীত হাল্কা যান চলাচলের অনুমতি দেয়। ওইদিন বিকেল থেকে হালকা যান চলাচল শুরু হলেও সড়ক ও জনপথ বিভাগের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সন্ধ্যায় কয়লা বোঝাই একটি ট্রাক পারাপারের সময় সেতুটি ধসে পড়ে। এরপর থেকে পুনরায় মৌলভীবাজারের সঙ্গে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এখন বিকল্প সড়কে চা বাগান ঘুরে যানবাহন চলাচল করছে।

এদিকে, এ ঘটনায় সড়ক ও জনপথ বিভাগ ওই ট্রাকটি আটক করে কমলগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) দায়ের করে।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জিয়া উদ্দিন বলেন, শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। আমাদের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কয়লা বোঝাই ট্রাকটি পার হতে গেলে সেতুটি পুনরায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়। জরুরী ভিত্তিতে মেরামতের কাজ চলছে। থানায় একটি ডায়েরিও করা হয়েছে। এই স্থানে নতুন সেতুর জন্য মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন পাওয়া গেলেই পরবর্তী কার্যক্রম শুরু হবে।

উল্লেখ্য, ১৯৮৮ সালে ধলাই নদীর ওপর চৈত্রঘাট এলাকায় সেতুটি (বেইলি ব্রিজ) নির্মিত হয়। মৌলভীবাজার জেলা শহর ছাড়াও শমশেরনগর চাতলাপুর চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম সড়ক ও সেতু এটি। কমলগঞ্জ উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন এবং কুলাউড়া উপজেলার তিন ইউনিয়নের হাজারো লোকজন প্রতিদিন এই সড়ক ও সেতু দিয়ে যাতায়াত করেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে : 987 বার