সিলেটSunday , 26 February 2023
  1. আইন-আদালত
  2. আন্তর্জাতিক
  3. উপ সম্পাদকীয়
  4. খেলা
  5. ছবি কথা বলে
  6. জাতীয়
  7. ধর্ম
  8. প্রবাস
  9. বিচিত্র সংবাদ
  10. বিনোদন
  11. বিয়ানী বাজার সংবাদ
  12. ব্রেকিং নিউজ
  13. মতামত
  14. মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু
  15. রাজনীতি

প্রেসিডেন্ট হলে শত্রু দেশগুলোতে মার্কিন সহায়তা বন্ধ করবো: হ্যালি

Link Copied!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলীয় মনোনয়নপ্রত্যাশী নিকি হ্যালি বলেছেন, ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য যদি তাকে ভোট দেওয়া হয়, তাহলে যুক্তরাষ্ট্রকে ঘৃণা করে এমন দেশগুলোর জন্য মার্কিন বৈদেশিক সহায়তা বন্ধ করে দেবেন। এসব দেশের মধ্যে পাকিস্তান, চীন ও অন্যান্য শত্রুরাও রয়েছে।

শনিবার মার্কিন দৈনিক নিউ ইয়র্ক পোস্টে লেখা এক নিবন্ধে এসব কথা বলেছেন নিকি হ্যালি। তিনি বলেছেন, আমাদেরকে ঘৃণা করা দেশগুলোকে দেওয়া সহায়তা বন্ধ করে দেব। এক পয়সাও সহায়তা করবো না। শক্তিশালী আমেরিকা খারাপ লোকদের সহায়তা করে না। গৌরবান্বিত যুক্তরাষ্ট্র তার জনগণের কষ্টার্জিত অর্থ নষ্ট করে না। কেবল সেই নেতারা আমাদের আস্থা অর্জন করতে পারেন, যারা
আমাদের শত্রুদের বিরুদ্ধে দাঁড়ান এবং বন্ধুদের পাশে থাকেন।

যুক্তরাষ্ট্র্রের সাউথ ক্যারোলিনা রাজ্যের সাবেক গভর্নর নিকি হ্যালি। জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রদূত হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। হ্যালি লিখেছেন, যুক্তরাষ্ট্র গত বছর বিদেশি সহায়তায় ৪৬ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে। যা বিশ্বের যে কোনও দেশের তুলনায় অনেক বেশি। অর্থ কোথায় যায় এবং কোন কাজে ব্যয় হচ্ছে তা করদাতাদের জানার অধিকার রয়েছে। এর বেশির ভাগই আমেরিকা-বিরোধী দেশ ও স্বার্থের কাছে যাচ্ছে; যা জানলে করদাতারা হতবাক হবেন।

আগামী ২০২৪ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলীয় প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার লক্ষ্যে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে প্রচারণা শুরু করেছেন নিকি হ্যালি। ভোটারদের কাছে নিজেকে রিপাবলিকান দলীয় নতুন প্রজন্মের প্রতিনিধি হিসেবে তুলে ধরছেন তিনি।

প্রথম ভারতীয়-আমেরিকান বংশোদ্ভূত নারী হিসেবে মার্কিন নির্বাচনে রিপাবলিকান দলের মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন নিকি হ্যালি। সাউথ ক্যারোলিনার সাবেক গভর্নর ও জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি নিজেকে ভারতীয় অভিবাসীদের গর্বিত কন্যা হিসাবে পরিচয় দেন। রিপাবলিকান পার্টির জন্য নতুন ভবিষ্যৎ তৈরির আশাও প্রকাশ করেছেন তিনি।

নিউ ইয়র্ক পোস্টে লেখা নিবন্ধে উদাহরণ হিসেবে ইরানের কথা উল্লেখ করে হ্যালি বলেছেন, গত কয়েক বছরে ইরানকে ২ বিলিয়ন ডলারের বেশি সহায়তা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু এই দেশটির সরকার খুনী সন্ত্রাসীদের আরও ঘনিষ্ঠ হচ্ছে, যারা ‘আমেরিকার মৃত্যু’ চাই স্লোগান দেয়, আমাদের সৈন্যদের ওপর আক্রমণ চালায়।

তিনি বলেছেন, বাইডেনের প্রশাসন পাকিস্তানে পুনরায় সামরিক সহায়তা শুরু করেছে। যদিও এই দেশটি কমপক্ষে এক ডজন সন্ত্রাসী সংগঠনের আস্তানা। পাকিস্তানের সরকার চীনের ওপর ঘনিষ্ঠভাবে নির্ভরশীল। টিম বাইডেন জাতিসংঘের একটি দুর্নীতিগ্রস্ত সংস্থাকে অর্ধ-বিলিয়ন ডলার সহায়তা দিয়েছে; যা দিয়ে ফিলিস্তিনি জনগণকে সাহায্য করার কথা। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এই সংগঠনটি আমাদের মিত্র ইসরায়েলের বিরুদ্ধে গভীরভাবে ইহুদি-বিরোধী প্রচারণা চালাচ্ছে।

হ্যালি লিখেছেন, যুক্তরাষ্ট্র লাখ লাখ ডলার জিম্বাবুয়েকে সহায়তা করেছে। কিন্তু জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার বেশিরভাগ রেকর্ড রয়েছে এই দেশটির।

সাউথ ক্যারোলিনার সাবেক এই গভর্নর বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের শক্তি, গৌরব, জনগণের আস্থা পুনরুদ্ধারের লক্ষ্যে প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তিনি।

তার মতে, ইসরায়েল ও ইউক্রেনের মতো আমেরিকান মিত্র ও বন্ধুদের সমর্থন করাই বুদ্ধিমানের কাজ। তিনি বলেন, শত্রুদের কাছে আমাদের করের অর্থ পাঠানো যাবে না। হ্যালি লিখেছেন, আমি তেমন প্রেসিডেন্ট হতে চাই, ঠিক যেমন রাষ্ট্রদূত ছিলাম।